গনহত্যা শিকার করলেন সুচি | | সেরা নিউজ ২৪ ডটকম | SeraNews24.Com | সর্বদা সত্যের সন্ধানে
বিজ্ঞপ্তিঃ

*** দেশের জনপ্রিয় জাতীয় অনলাইন দৈনিক “সেরা নিউজ ২৪ ডটকম” এর সংবাদ সংগ্রহ করার জন্য জেলা-উপজেলা পর্যায়ে কর্মঠ, সৎ, সাহসী পুরুষ ও মহিলা সংবাদদাতা/প্রতিনিধি/বিশেষ প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। ***

গনহত্যা শিকার করলেন সুচি

গনহত্যা শিকার করলেন সুচি

মঙ্গলবার ভাবলেশহীন মুখে বসে শুনেছেন সবটুকু। জাম্বিয়ার আইনজীবী সে দিন একের পর এক দস্তাবেজ পেশ করেছেন, পড়ে শুনিয়েছেন মায়ানমার সেনাবাহিনীর হাতে ধর্ষিত হওয়া রোহিঙ্গা মুসলিম মহিলাদের বয়ান। চুপ করে শুনেছেন মায়ানমারের স্টেট কাউন্সেলর অং সান সু কি। এ দিন আত্মপক্ষ সমর্থনে ‘দ্য হেগ’-এ আন্তর্জাতিক আদালতে দাঁড়িয়ে প্রাক্তন নোবেল শান্তি পুরস্কারজয়ী বললেন, ‘রাখাইন প্রদেশের পরিস্থিতি নিয়ে যে ছবি তুলে ধরা হয়েছে, তা অসম্পূর্ণ ও বিভ্রান্তিকর।’

তবে একই সঙ্গে তিনি মেনে নিয়েছেন কোথাও কোথাও সেনাবাহিনী হয়তো প্রয়োজনের তুলনায় বেশি বলপ্রয়োগ করেছে। তাঁর কথায়, ‘আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইন উপেক্ষা করে কোথাও কোথাও হয়তো অপ্রয়োজনীয় ভাবে বেশি বলপ্রয়োগ করেছে আমাদের সেনা। কোথাও আবার আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মি (আরসা) যোদ্ধা ও সাধারণ মানুষের মধ্যে ফারাক করেনি তারা। কিন্তু এগুলি ফৌজদারি বিচার পদ্ধতি মেনে তবে স্থির করতে হবে।’ একই সঙ্গে সু কি মনে করিয়ে দিয়েছেন, সংঘর্ষের শুরু করেছিল আরসা-ই।

তথ্য বলছে, ২০১৭ সালে মায়ানমারের বাহিনীর তৎপরতা শুরু হওয়ার পর সাত লক্ষ চল্লিশ হাজারেরও বেশি রোহিঙ্গা মায়ানমার ছেড়ে পালিয়েছিলেন। রাষ্ট্রপুঞ্জ প্রাথমিক তদন্তের পর বিষয়টিকে ‘জাতিনিধন’ তকমা দিয়েছে। প্রত্যাশিত ভাবেই সু কি সে অভিযোগ সটান খারিজ করে দিয়ে বলেন, ‘রাখাইন প্রদেশের সমস্যা অত্যন্ত জটিল ও বোঝা দুরূহ…প্রাচীন আরাকান রাজত্বের দ্বারা অনুপ্রাণিত আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মি (আরসা) স্বাধীন রাখাইন প্রদেশের দাবি করে।’ বিষয়টি বোঝাতে সু কি সংঘর্ষের ইতিহাস বলতে শুরু করেন। তাঁর কথায়, এ বারের সংঘর্ষ আরম্ভ হয় ২০১৬ সালের শেষ দিকে শুরু হলেও চরমে ওঠে ২০১৭ সালের অগস্টে। জঙ্গিরা মঙ্গদ শহর দখলের চেষ্টা করলে সন্ত্রাসদমন অভিযানে বাধ্য হয় মায়ানমার সেনা, যুক্তি সু কি-র। কিন্তু জাতিনিধন, গণধর্ষণ, নির্বিচারে খুন, বাড়ি জ্বালিয়ে দেওয়া সে সব কেন? এক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক আইনের সীমাবদ্ধতা মনে করিয়ে দেন মায়ানমারের অন্যতম জনপ্রিয় নেত্রী। ওই আইনে বলা হয়েছে, সংশ্লিষ্ট দেশের অভ্যন্তরীণ বিচারব্যবস্থার পরিপূরক হিসেবে আন্তর্জাতিক আইনে বিচার হতে পারে। সে প্রসঙ্গেই সু কি-র দাবি, মানবাধিকার আদৌ লঙ্ঘন হয়ে থাকলে মায়ানমার নিজেই তার তদন্ত করে দোষীদের শাস্তি দেবে। তাঁর আরও দাবি, ইতিমধ্যে আমজনতাকে মেরে ফেলায় শাস্তি পেয়েছেন সেনাবাহিনীর একাধিক সদস্য।

মায়ানমারের বিরুদ্ধে গণহত্যার অভিযোগ তোলা গাম্বিয়ার বিরুদ্ধে এ দিন সরব হন মায়ানমারের আইনজীবী ক্রিস্টোফার স্টকার। তাঁর দাবি, মায়ানমারের ঘটনায় কোনও দেশ ক্ষুব্ধ হলে তা হওয়ার কথা বাংলাদেশের। গণহত্যার প্রশ্নে যে সব দেশ মামলা করেছে, প্রত্যেকে সরাসরি ক্ষতিগ্রস্ত, কিন্তু গাম্বিয়া তা নয়। কিন্তু গাম্বিয়ার প্রশ্নের জবাবে মায়ানমােরর নেত্রী যা বলেছেন, তাতে সু কি-েক ‘মিথ্যুক’ বলছেন বাংলাদেশের কক্সবাজারের ত্রাণশিবিরে থাকা রোহিঙ্গারা। তবে, মিথ্যে পেরিয়ে রায় তাঁদের পক্ষে যাবে বলে আশাবাদী রোহিঙ্গারা। শুনানির ফল কী হবে, জানা নেই। তবে আন্তর্জাতিক আদালতের বাইরে প্ল্যাকার্ড হাতে সু কি-র সমর্থকদের বার্তা, ‘আপনার পাশে আছি।’ সূত্রের খবর, রাষ্ট্রপুঞ্জের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে গিয়ে ব্রিটেন মায়ানমারের ‘বন্ধ’ হয়ে যাওয়া রোহিঙ্গা শিবিরগুলিকে আর্থিক অনুদান জুগিয়ে যাবে।

Print Friendly, PDF & Email

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার মতামত ‍লিখুন

মন্তব্য

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন...

সংবাদ খুজুন

ফেসবুক গ্রুপে যোগ দিনঃ

 
সেরা নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম – SeraNews24.Com ☑️
পাবলিক গোষ্ঠী · 22,943 জন সদস্য

গোষ্ঠীতে যোগ দিন

প্রতিমুহূর্তের সংবাদ পেতে Like দিন অফিশিয়াল পেইজ এ।
নিউজ পোর্টাল: www.SeraNews24.Com
ফেসবুক গ্রুপ: http://bit.do/SN24FBGroup
ইউটিউব চ্যানেল: http://bi…
 

 About Us     Contact     Privacy & Policy     DMCA     Sitemap

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | সেরা নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম ২০১৮

Design & Developed By Digital Computer Center
error: Content is protected !!