এক নোটিশেই গ্রামীণ টেলিকমের ৯৯ কর্মী ছাঁটাই | | সেরা নিউজ ২৪ ডটকম | SeraNews24.Com | সর্বদা সত্যের সন্ধানে
এক নোটিশেই গ্রামীণ টেলিকমের ৯৯ কর্মী ছাঁটাই

এক নোটিশেই গ্রামীণ টেলিকমের ৯৯ কর্মী ছাঁটাই




এক নোটিশেই ৯৯ কর্মীকে ছাঁটাই করেছে নোবেল জয়ী অর্থনীতিবিদ ড. ইউনূসের প্রতিষ্ঠান গ্রামীণ টেলিকম। পাওনা চেয়ে মামলা করায় এমনটা করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটিতে কর্মরতরা।

গ্রামীণ টেলিকম শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের নেতারা জানান, কোনো নোটিশ ও শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়ন (বি-২১৯৪) সিবিএ’র সঙ্গে আলোচনা না করেই এক নোটিশের মাধ্যমে ৯৯ কর্মীকে ছাঁটাই করেছেন নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. মুহাম্মদ ইউনূস।

গ্রামীণ টেলিকম ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আশরাফুল হাসান স্বাক্ষরিত এক নোটিশের মাধ্যমে এ ছাঁটাই করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, বকেয়া পাওনা পরিশোধ না করায় ২০১৬ সালে প্রথম মামলা করেন গ্রামীণ টেলিকমের সাবেক ১৪ কর্মী। পরে বকেয়া পাওনা চেয়ে ড. মুহাম্মদ ইউনূসের বিরুদ্ধে ৯৩টি মামলা করেন তার প্রতিষ্ঠিত কোম্পানি গ্রামীণ টেলিকমের বর্তমান কর্মীরা। ঢাকার শ্রম আদালতে সব মিলে ১০৭টি মামলা করা হয়। এছাড়া প্রতিষ্ঠানটির সাবেক ১৪ কর্মী আরও ১৪টি মামলা করেন পাওনা টাকার জন্য।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ মোবাইল ফোন অপারেটর গ্রামীণফোনে ৩৪.২০ শতাংশ শেয়ার আছে গ্রামীণ টেলিকমের। প্রতিষ্ঠানটি নিজস্ব পল্লীফোন ছাড়াও নকিয়া মোবাইলের সার্ভিস দিয়ে থাকে।

প্রতিষ্ঠানটির মুনাফা কর্মীদের মাঝে বণ্টন করে দেয়ার আইনি বাধ্যবাধকতা থাকলেও তা দেয়া হয়নি। ২০০৬ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত গ্রামীণ টেলিকমের মুনাফা হয়েছে ৬ হাজার ১৫ কোটি টাকা। কিন্তু এ নিট মুনাফার ৫ শতাংশ কর্মীদের, প্রতিষ্ঠানের কল্যাণ তহবিল ও সরকারের শ্রমিক কল্যাণ তহবিল ও ৮০ঃ১০ঃ১০ অনুপাতে পরিশোধ করার বিধান থাকলেও তা পরিশোধ করা হয়নি।

সেই সাথে শ্রমিক কল্যাণ তহবিল ও শ্রম অধিদফতরের কলকারখানা এবং প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদফতর থেকে সরকারের পাওনা টাকা চেয়ে বারবার চিঠি দিয়ে তাগাদা দিলেও কোনো কর্ণপাত করেনি গ্রামীণ টেলিকম। উল্টো শ্রমিকদের পাওনা পরিশোধ না করে নোটিশের মাধ্যমে ৯৯ জন কর্মচারীকে ছাঁটাই করা হলো।

তার মধ্যে শ্রম অধিদফতর কর্তৃক নিবন্ধনকৃত গ্রামীণ টেলিকম শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের (বি-২১৯৪) ইউনিয়ন সদস্য ও নেতারাও রয়েছেন।

ছাঁটাই সম্পর্কে গ্রামীণ টেলিকম শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ফিরোজ মাহমুদ হাসান বলেন, ‘সম্পূর্ণ বেআইনিভাবে গত ২৫ তারিখ এক চিঠিতে আমাদের প্রতিষ্ঠানের সব কর্মীকে ছাঁটাই করা হয়েছে। এর মধ্যে গ্রামীণ টেলিকম শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সাতজন কার্যকরী সদস্য রয়েছেন। প্রতিষ্ঠানের সব কর্মী ও ইউনিয়নের কার্যকরী সদস্য ছাঁটাই সম্পূর্ণ বেআইনি। করোনাকালীন একটি লাভজনক প্রতিষ্ঠান এভাবে বন্ধ করতে পারেন না, আমরা আইনিভাবে ও আন্দোলনের মাধ্যমে তা মোকাবিলা করবো।’

তিনি আরও বলেন, গতকাল পূজার ছুটি শেষে অফিসে গেলে গ্রামীণ ডিস্ট্রিবিউশনের ভাড়াটে লোকজন এসে উপস্থিত হয়। ভয়ভীতি দেখিয়ে ও চাপ সৃষ্টি করে একটি আবেদন ফরমে স্বাক্ষর নেন। এখন ফোন করে সব কর্মীকে ভয়ভীতি দেখাচ্ছে, যাতে তারা কোনো আন্দোলন ও ছাঁটাইয়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে না পারেন। ইউনিয়ন ধ্বংস করতে ও ছাঁটাইয়ের বৈধতা নিতে ড. মুহাম্মদ ইউনূস চক্রান্তে লিপ্ত হয়েছেন।

ফিরোজ মাহমুদ বলেন, ইউনিয়নের ভবিষ্যৎ ও এতগুলো কর্মীর পরিবার কঠিন বিপদের সম্মুখীন। সরকারের সহযোগিতা না পেলে এতগুলো লোক একসাথে না খেয়ে মরা ছাড়া আর কোনো উপায় থাকবে না। আমরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃষ্টি ও সহযোগিতা কামনা করছি।

শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি কামরুজ্জামান অ্যাপোলো বলেন, ‘ড. ইউনূস স্যার একজন সম্মানিত লোক, তার মতো একজন মানুষের পক্ষে বেআইনি কাজ মেনে নেয়া যায় না। গ্রামীণ টেলিকম একটি লাভজনক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, তাছাড়া প্রতিষ্ঠানটি দেউলিয়াও হয়ে যায়নি। তাই এমন প্রতিষ্ঠান বন্ধ না করে সব শ্রমিক ছাঁটাই সম্পূর্ণ অবৈধ। আমরা তার কাছে অনুরোধ করছি অনতিবিলম্বে এই অবৈধ টার্মিনেশন তুলে নেন নতুবা আমরা আন্দোলনের মাধ্যমে পুনরুদ্ধার করবো।’

তিনি আরও বলেন, তার প্রতিষ্ঠান শ্রম আইন মানে না এটা কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদফতরের তদন্তের মাধ্যমে প্রমাণিত হয়েছে। সেই ১২টি লঙ্ঘন এখনো পরিপূর্ণ না করে তিনি উদ্দেশ্যমূলকভাবে ছাঁটাই করছেন, যাতে সরকার ও শ্রমিকদের পাওনা দিতে না হয়।

টেলিকম কর্মীদের এক আইনজীবী জাফরুল হাসান শরিফ বলেন, এখন পর্যন্ত গ্রামীণ টেলিকমের বিরুদ্ধে ১০৭টি মামলা আদালতে চলমান। গ্রামীণ টেলিকম শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়ন নামের প্রতিষ্ঠানে একটি ট্রেড ইউনিয়ন সক্রিয় রয়েছে, যা যৌথ দরকষাকষি প্রতিনিধিও বটে, সেই সাথে তাদের একটি দাবিনামা আদালতে অনিষ্পত্তি অবস্থায় রয়েছে। এই যৌথ দরকষাকষি প্রতিনিধিসহ সব কর্মীকে এভাবে একসঙ্গে টার্মিনেট করা সম্পূর্ণ আইনের লঙ্ঘন। আমরা শিগগিরই এই টার্মিনেশন চ্যালেঞ্জ করবো।

এ বিষয়ে গ্রামীণ টেলিকমের এমডি আশরাফুল হাসান বলেন, ‘আমরা শ্রম আইনের বিধান মেনেই ৯৯ জন কর্মীকে টার্মিনেট করেছি। তারা তাদের যাবতীয় পাওনা বুঝে পাবেন।’

Print Friendly, PDF & Email

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন...




Close(X)
Close(X)


Close(X)
Close(X)

সংবাদ খুজুন

ফেসবুক গ্রুপে যোগ দিনঃ

 
সেরা নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম – SeraNews24.Com ☑️
পাবলিক গোষ্ঠী · 23,009 জন সদস্য

গোষ্ঠীতে যোগ দিন

প্রতিমুহূর্তের সংবাদ পেতে Like দিন অফিশিয়াল পেইজ এ।
নিউজ পোর্টাল: www.SeraNews24.Com
ফেসবুক গ্রুপ: http://bit.do/SN24FBGroup
ইউটিউব চ্যানেল: http://bi…
 

আজকের নামাজের সময়সূচি

ঢাকা, বাংলাদেশ।
বুধবার, ২ ডিসেম্বর, ২০২০
ওয়াক্তসময়
সুবহে সাদিকভোর ৫:০৫
সূর্যোদয়ভোর ৬:২৫
যোহরদুপুর ১১:৪৮
আছরবিকাল ৩:৩৫
মাগরিবসন্ধ্যা ৫:১১
এশা রাত ৬:৩১







 About Us     Contact     Privacy & Policy     DMCA     Sitemap

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | সেরা নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম ২০১৮

Design & Developed By Digital Computer Center
error: Content is protected !!